উত্তরার মর্মান্তিক কার দূর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা ৫ 

উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের সংবাদটি শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক, উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন ::  রাজধানীর উত্তরার জসিমউদ্দীন রোডে র‍্যাপিড ট্রানজিট সিস্টেম’র (বিআরটি) প্রকল্পের গার্ডার ভেঙে পড়ে প্রাইভেট কারে থাকা শিশুসহ ৫ যাত্রী নিহত হয়েছেন। সোমবার (১৫ আগস্ট) বিকেলের দিকে গার্ডারটি ভেঙে একটি প্রাইভেট কারের ওপর পড়ে। দুর্ঘটনাকবলিত প্রাইভেট কারের রেজিস্টেশন নম্বর ঢাকা মেট্রো-গ-২২৬০০৮। স্থানীয়রা জানান, বিআরটি প্রকল্পের কাজে যখন গার্ডার সরানো হয় তখন আশপাশের এলাকায় নিরাপত্তা নিশ্চিত করার কথা।

 

কিন্তু জসিমউদ্দীন রোডের এই এলাকায় এ ধরনের ভারী বস্তুর কাজ দীর্ঘদিন হলেও প্রকল্প কর্তৃপক্ষ নিরাপত্তা দেয়নি। এ রোডে মোটরসাইকেল, প্রাইভেট কার প্রতিনিয়তই যাতায়াত করে। নিরাপত্তা না থাকায় প্রাইভেট কার গার্ডারের নিচে চাপা পড়েছে। নিহতরা হলেন- মো. রুবেল (৫০), ঝর্ণা (২৮), জান্নাত (৬) ও জাকিয়া (২)। অপর ব্যক্তির নাম জানা যায়নি। এ ছাড়া এ ঘটনায় আরও ২ জনকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

 

 

এ বিষয়ে ঢাকা ট্রাফিক পুলিশের উত্তরা বিভাগের সহকারি কমিশনার মোহাম্মদ সাইফুল মালিক উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনকে জানান, নিহতরা সবাই একটি টয়োটা গাড়িতে ছিলেন।

 

 

 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের গার্ডার ক্রেন দিয়ে সরানোর সময় গাড়ির ওপর পড়ে। প্রাইভেট কার থেকে মোট সাত জনের মধ্যে দুই জনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। বাকিদের উদ্ধারের কাজ চলছে।

 

উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের  সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন

 

এদিকে ঢাকা উত্তরা পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনকে জানান, বিকেলে আড়ংয়ের শো-রুমের সামনে বিআরটি প্রকল্পের এলিভেটেট এক্সপ্রেসওয়ের গার্ডার ক্রেন দিয়ে সরানোর সময় নিচে পড়ে যায়। গার্ডারটি একটি প্রাইভেট কারের ওপরে পড়ে। পুলিশ ধারণা করছে, নিহতরা সবাই একই পরিবারের। গার্ডার সরিয়ে দুর্ঘটনা কবলিত প্রাইভেট কারটি উদ্ধার করার পর ওই ৪ জনের মরদেহ পাওয়া যায়।

 

 

ষাকা উত্তরায় বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি) প্রকল্পের যে গার্ডারটি প্রাইভেট কারকে চাপা দিয়েছে, সেটির ওজন ৪০ থেকে ৪৫ টন। বিপুল ওজনের এই গার্ডার পিলারে তোলার চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু যে ক্রেনটি দিয়ে তা তোলা হচ্ছিল, সেটির এই ওজন বহনের সক্ষমতা ছিল না। ফলে ক্রেনটি কাত হয়ে যায়। গার্ডারটি পড়ে গাড়িতে। নিমেষেই গাড়িটি চিড়ে-চ্যাপটা হয়ে পাঁচটি তাজা প্রাণ ঝরে যায়।

 

 

today-uttara-road-accident-bangladesh
ঢাকা উত্তরার ভয়াবহ দূর্ঘটনায় বিস্মিত সবাই

প্রত্যক্ষদর্শী এবং প্রকল্পের কাজের সঙ্গে যুক্ত সূত্র বলছে, ক্রেনটি সমান জায়গাতেই দাঁড়ানো ছিল। গার্ডারটি ওপরে তোলার সময় এমনভাবে কাত হয়ে যাওয়ার কথা নয়। এর অর্থ হচ্ছে গার্ডারের ভার বহনের ক্ষমতা ওই ক্রেনের ছিল না। যদি এমনটাই হয়ে থাকে, তাহলে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এবং নির্মাণকাজ তদারকির দায়িত্বে থাকা সরকারি প্রকৌশলীদের ওপর দায় বর্তায়।

 

 

আরোও উল্লেখ্য যে, গত ১৫ জুলাই গাজীপুরে একই প্রকল্পের ‘লঞ্চিং গার্ডার’ চাপায় এক নিরাপত্তারক্ষী নিহত হন। এ দুর্ঘটনায় এক শ্রমিক ও একজন পথচারী আহত হন।

https:\/\/preview-xupnewsc.uttorbongoprotidin.com//preview-xupnewsc.uttorbongoprotidin.com//www.youtube.com/watch?v=HzVe8k_KiKY


News Source: Ref:  BSS।  UP।   PNS।  BNA।  UNB । 

 


উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের সংবাদটি শেয়ার করুন

Discover more from UttorbongoProtidin.Com 24/7 Bengali and English National Newsportal from Bangladesh.

Subscribe to get the latest posts to your email.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *