সাংবাদিককে না পেয়ে সাংবাদিকের মাকে হত্যা করল দূর্বৃত্তরা

উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের সংবাদটি শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক, উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন ::  পিরোজপুরের নিজ বাসা থেকে ভয়েস অব আমেরিকার বাংলাদেশ প্রতিনিধি আমির খসরুর মা সেতারা হালিমের (৭৪) মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পরিবারের লোকজনের অভিযোগ, রাতে শ্বাসরোধ করে সিতারাকে হত্যা করে মরদেহ ঘরের মেঝে ফেলে রাখা হয়েছে। সোমবার (১৬ মে) সকাল ১০টায় পিরোজপুরের সিআইপাড়া এলাকার নিজ বাসভবন থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

 

 

সিতারা হালিম পিরোজপুর পৌরসভার সিআইপাড়া এলাকার মৃত প্রফেসর আব্দুর হালিম হাওলাদারের স্ত্রী। তার মেয়ে সালাম আরজু জানান, শহরের সিআইপাড়ার বাসভবনের দ্বিতীয় তলায় তার মা একা থাকতেন। রোববার রাতে সবশেষ তার মায়ের সঙ্গে কথা হয়। সকালে তাদের বাসায় রং করার জন্য আব্দুল কুদ্দুস নামের একজন তাদের বাসায় এসে ডাকাডাকি করলেও তার মা দরজা না খুললে তিনি বাসার নিচতলায় ভাড়াটিয়ার কাছে বিষয়টি জানান।

 

 

পরে অনেক সময় অতিবাহিত হলেও দরজা না খুললে ভাড়াটিয়া ও রংমিস্ত্রি পেছনের দরজা দিয়ে ডাকতে গেলে তারা তা খোলা দেখতে। তখন তারা বাসায় ঢুকে দেখেন, তার মা মেঝে পড়ে আছেন। এ সময় তাদের বাসার ভাড়াটিয়া তাকে বিষয়টি ফোনে জানালে তিনি ও তার স্বামী বাসায় এসে দেখেন তার মা মেঝে পড়ে আছেন। তার গলায় আঘাতের চিহ্ন আছে। আলমারি ও আসবাব এলোমেলোভাবে পড়ে আছে। তারা পুলিশকে খবর দিলে তারা এসে মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

 

পিরোজপুর জেলা হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. স্বগত হালদার জানান, মৃত অবস্থায় সিতারা হালিম নামে এক বয়স্ক নারীকে হাসপাতালে আনা হয়েছিল। তার গলায় আঘাতের চিহ্ন আছে। পিরোজপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) থান্দার খায়রুল হাসান জানান, সকালে খবর পেয়ে পুলিশ সিতারা হালিমের মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, শ্বাসরোধ করে রাতে তাকে হত্যা করে ঘরের ভেতর ফেলে রাখা হয়েছিল। পুলিশ তদন্ত করে দেখছে এবং আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

 

 

মঙ্গলবার (১৭ মে) দুপুরে সাংবাদিক আমির খসরু নিজে বাদী হয়ে সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আ. জ. মো. মাসুদুজ্জামান জানান, সেতারা হালিম হত্যার ঘটনায় তার ছেলে আমির খসরু বাদী হয়ে অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে সোমবার দুপুরে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

 

তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুইজনকে আটক করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।  এর আগে, সোমবার (১৬ মে) সকালে পিরোজপুর শহরের সিআইপাড়া এলাকার নিজ বাসা থেকে সিতারা হালিমের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তার গলায় আঘাতের চিহ্ন ছিল। পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, রাতে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর তার মরদেহ ঘরের মেঝে ফেলে রাখে দুর্বৃত্তরা।


উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের সংবাদটি শেয়ার করুন

Discover more from UttorbongoProtidin.Com 24/7 Bengali and English National Newsportal from Bangladesh.

Subscribe to get the latest posts to your email.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *