Rajshahi_Pet_Care
victory_day_gettings_rcc_mayor

বিজয় দিবসে রাসিক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটনের বানী

ষ্টাফ রিপোর্টার || উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন :: ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে বাণী দিয়েছেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। বাণীতে রাসিক মেয়র বলেন, ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস। বাঙালি জাতির এক অনন্য গৌরবোজ্জ্বল দিন। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বাঙালি জাতি নয় মাসের রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে ১৯৭১ সালের এই দিনে চূড়ান্ত বিজয় অর্জন করে। মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে রাজশাহীবাসীসহ সকলকে জানাই শুভেচ্ছা।
Independence-Award-2023_resize_33

স্বাধীনতা পদক কি ?

স্টাফ রিপোর্টার,উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন ::-  স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় পুরস্কার। মুক্তিযুদ্ধের বীর শহীদদের স্মরণে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে সর্বোচ্চ স্বীকৃতি স্বরূপ ১৯৭৭ সালে বাংলাদেশ সরকার এ পুরস্কার প্রবর্তন করে। জাতীয় জীবনে বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশিষ্ট অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ বাংলাদেশের নাগরিককে স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার প্রদান করা হয়। এ পুরস্কার প্রদানের ক্ষেত্রগুলি হলো স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধে স্মরণীয় অবদান, ভাষা আন্দোলনে অবদান এবং শিক্ষা, সাহিত্য, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, চিকিৎসা বিজ্ঞান, সাংবাদিকতা, জনসেবা, সামাজিক বিজ্ঞান, সঙ্গীত, ক্রীড়া, চারুকলা ও পল্লী উন্নয়নে অবদান।
বিজয়ের সূবর্নজয়ন্তীতে রাজশাহী দলিল লেখক সমিতির দিনব্যাপী কর্মসূচি পালন

বিজয়ের সূবর্নজয়ন্তীতে রাজশাহী দলিল লেখক সমিতির দিনব্যাপী কর্মসূচি পালন

মহানগর প্রতিবেদক, উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন ::১৬ই ডিসেম্বর বিজয়ের সূবর্নজয়ন্তীতে রাজশাহী সদর দলিল লেখক সমিতি দিনব্যাপী কর্মসূচি পালন করেছে। এর মধ্যে বিজয় র‍্যালী ও শহীদ মিনারে পুস্প স্তবক অর্পনসহ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সকাল ১১.৩০ টার দিকে  বিজয় র‍্যালিটি রাজশাহী শহরের বিভিন্ন স্থান প্রদক্ষিন করে রাজশাহী মহানগরীর স্বাধীনতা চত্বরে এসে শেষ হয়। এসময় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পন করেন রাজশাহী সদর দলিল লেখক সমিতির সদস্যবৃন্দ।

আজ অপ্রতিরোধ্য বাংলার সুবর্ণজয়ন্তী

আজ অপ্রতিরোধ্য বাংলা বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তী

নিজস্ব প্রতিবেদক, উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন :: স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর দিন। বাঙালির আবেগ আর গৌরবের মহান বিজয় দিবস পঞ্চাশ বছরের মাইলফলক পেরিয়েছে আজ।

আজ মহান বিজয় দিবস। বীরের জাতি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করার দিন। পৃথিবীর মানচিত্রে বাংলাদেশ নামে একটি স্বাধীন ভূখণ্ডের নাম জানান দেওয়ার দিন। বাঙালি জাতির হাজার বছরের শৌর্যবীর্য এবং বীরত্বের এক অবিস্মরণীয় দিন।

bangladesh-liberation-war

ফিরে দেখা ৬ ডিসেম্বর ১৯৭১

স্টাফ রিপোর্টার, উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন ::  আজ ৬ ডিসেম্বর। লাখো শহীদের রক্তেরঞ্জিত দিন-মাস পেরিয়ে ১৯৭১ এর আজকের দিনে বাংলার দামাল ছেলেরা তাদের অপ্রতিরোধ্য সংগ্রাম- মুক্তিযুদ্ধকে চূড়ান্ত বিজয়ের দিকে নিয়ে যাচ্ছিল। দেশের সব জায়গাতেই হানাদার পাকিস্তানি বাহিনী ও তাদের দোসররা প্রতিহত হচ্ছিল। প্রতিরোধের মুখে বাধ্য হচ্ছিল পিছু হটতে। বাংলার মেঘাচ্ছন্ন আকাশে সেদিন সত্যি সূর্য হেসেছিল। উঁকি দিচ্ছিল স্বাধীনতার সূর্য। আজকের দিনে ভারতের আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধকে বিজয়ের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যায় এবং পাকিস্তানের পরাজয় আসন্ন হয়ে পড়ে। আর এ কারণেই স্বাধীন-সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশের বিজয় অর্জনের অনন্য ও ঐতিহাসিক দিন আজ। ১৯৭১ সালের ৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশকে স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসাবে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি দেয় ভারত। সেসময় এ স্বীকৃতি অনেক বেশি তাত্পর্যপূর্ণ ছিল। এতে মুক্তিযুদ্ধের গতি আরো বেগবান হয়। রণযুদ্ধের পাশাপাশি কূটনৈতিক যুদ্ধেও পরাজিত হতে থাকে পাকিস্তানি হানাদাররা।