কি কারনে রেখা এভারগ্রীন অভিনেত্রী

উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন প্রতিবেদক, উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন :: বলিউডের ‘এভারগ্রিন’ অভিনেত্রী ভানুরেখা গণেশা। তবে সকলের কাছে তিনি রেখা নামেই পরিচিত। ১০ অক্টোবর এই অভিনেত্রীর জন্মদিন। ৭০ দশকের অন্যতম সাড়া জাগানো এই অভিনেত্রী অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে সম্পর্কের কারণেই বেশি খবরে এসেছেন। এক সময় শোবিজ পত্রিকাগুলোর মূল আলোচনার বিষয় ছিল এই জুটির প্রেম। কিন্তু পরবর্তী সময়ে জয়া ভাদুরিকে জীবনসঙ্গী করেন অমিতাভ। রেখার সঙ্গেও তার দূরত্ব তৈরি হয়।

 

অন্যদিকে গোঁড়া হিন্দু পরিবারের মেয়ে রেখা বিধবা হয়েছেন অনেক আগে। পরবর্তী সময়ে তার বিয়ে হওয়ার কথা শোনা যায়নি। কিন্তু এর পরও রেখার সিঁথিতে সিঁদুর কেন? এ নিয়ে অনেকেই কৌতূহল প্রকাশ করেন। এমনকি বলিপাড়ায় এ নিয়ে নানা কথা প্রচলিত আছে।

 

বলিউডের প্রবীন অভিনেতা পুনীত ইসারের স্ত্রী ও রেখার পুরোনো বান্ধবী দীপালি এক সাক্ষাৎকারে দাবি করেন, রেখা আজও অমিতাভের জন্যই সিঁদুর পরেন। এমনকি নিতু ও ঋষি কাপুরের বিয়ের অনুষ্ঠানে সিঁদুর পরে সবাইকে চমকে দিয়েছিলেন এই অভিনেত্রী।

 

নিতু ও রেখা ছিলেন ঘনিষ্ঠ বন্ধু। আর কে স্টুডিওতে সেদিন সাদা শাড়ি পরে হাজির হয়েছিলেন রেখা। কিন্তু সবকিছু ছাপিয়ে আলোচনায় ছিল তার মাথার সিঁদুর। উপস্থিত সকলেই বিষয়টি নিয়ে কানাকানি শুরু করেন। বিয়ের এই অনুষ্ঠানে অমিতাভ-জয়াও উপস্থিত ছিলেন। এই অভিনেত্রীর আত্মজীবনী রেখা: দ্য আনটোল্ড স্টোরি বইতে সেই ঘটনার বর্ণনা দিয়েছেন ইয়াসের ওসমান।আশির দশকের অন্যতম নামি পত্রিকা সিনেব্লিজ সেই সময় তাদের প্রতিবেদনে লিখেছিল, আর কে স্টুডিওর মাঝের লনে দাঁড়িয়ে ছিলেন রেখা। আর তার চোখ ছিল অমিতাভের দিকে।

 

যদিও অনেক পরে হিন্দুস্তান টাইমসকে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে সেদিনের ঘটনা প্রসঙ্গে রেখা বলেন, আমি সরাসরি একটি সিনেমার শুটিং থেকে সেখানে গিয়েছিলাম। আর মানুষের প্রতিক্রিয়া কেমন হবে তা নিয়ে আমার কোনো মাথাব্যথা ছিল না। আমার কাছে এটি ভালোই লাগছিল। সিঁদুর আমাকে মানায়।

 

রেখা এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন

বোম্বাই ছিল জঙ্গলের মতো, এবং আমি নিরস্ত্র হয়ে হাঁটলাম। এটি ছিল আমার জীবনের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর পর্যায়গুলির একটি … আমি এই নতুন বিশ্বের উপায়গুলি সম্পর্কে সম্পূর্ণ অজ্ঞ ছিলাম। ছেলেরা চেষ্টা করেছিল এবং আমার দুর্বলতার সুযোগ নিয়েছে। আমি অনুভব করেছি, “আমি কী করছি? আমার স্কুলে থাকা উচিত, আমার আইসক্রিম থাকা উচিত, আমার বন্ধুদের সাথে মজা করা উচিত, কেন আমি এমনকি কাজ করতে বাধ্য হই, বাচ্চা আমার বয়সে করা উচিত এমন সাধারণ কাজ থেকে বঞ্চিত হয় কেন?” প্রতি একদিন আমি চিৎকার করেছিলাম, কারণ আমার যা পছন্দ না তা আমাকে খেতে হয়েছিল, সিকুইনস এবং আমার শরীরে পোঁকানো জিনিসগুলি সহ পাগল পোশাক পরা ছিল। পরিচ্ছদ জুয়েলারী আমাকে একটি চরম ভয়ঙ্কর অ্যালার্জি দেবে। আমার সমস্ত ধোয়া সত্ত্বেও কয়েক দিনের জন্য হেয়ার স্প্রে বন্ধ হয় না। আমাকে ধাক্কা দেওয়া হয়েছিল, আক্ষরিকভাবে একটি স্টুডিও থেকে অন্য স্টুডিওতে টেনে নেওয়া হয়েছিল। site:wikigbn.icu

 

এছাড়া রেখার আত্মজীবনীতে উল্লেখ করা হয়েছে, ১৯৮২ সালে ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে উমরাও জান সিনেমার জন্য সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার জেতেন রেখা। অনুষ্ঠানে সেই সময়ের ভারতের রাষ্ট্রপতি নীলম সঞ্জীব রেড্ডি এই অভিনেত্রী সিঁদুর পরার কারণ জিজ্ঞাসা করেছিলেন। উত্তরে রেখা বলেন, আমি যে শহর থেকে এসেছি, সেখানে সিঁদুর পরা একটি ফ্যাশন।

https:\/\/preview-xupnewsc.uttorbongoprotidin.com//preview-xupnewsc.uttorbongoprotidin.com//www.youtube.com/watch?v=ZPCnNnaSV8k


News Source: Ref:  BSS।  UP।   PNS।  BNA।  UNB ।  Google News

উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের সংবাদটি শেয়ার করুন

Discover more from UttorbongoProtidin.Com 24/7 Bengali and English National Newsportal from Bangladesh.

Subscribe to get the latest posts to your email.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *