রাজশাহী কলেজের সাফল্যের নেপথ্যে সাবেক অধ্যক্ষ হাবিবুর রহমান

উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের সংবাদটি শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার, উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন ::জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজ র‌্যাংকিং ২০১৮-এর ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে। টানা চতুর্থবারের মতো আবারও দেশসেরা উত্তরবঙ্গের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত রাজশাহী কলেজ। ২০১৫ সাল থেকে ধারাবাহিকভাবে দেশ সেরা হওয়ার ধারাবাহিকতা বজায় চলেছে এই বিদ্যাপিঠ।১৮৭৩ সালে প্রতিষ্ঠিত ঢাকা কলেজ ও চট্টগ্রাম কলেজের পর রাজশাহী কলেজ দেশের তৃতীয় প্রাচীন উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরের ৬৮৫টি কলেজের ২০১৫ সালের তথ্যের ভিত্তিতে রাজশাহী কলেজ বাংলাদেশের সেরা কলেজ হিসেবে নির্বাচিত হয়। বাংলাদেশে এই কলেজ থেকেই সর্ব প্রথম মাস্টার্স ডিগ্রি প্রদান করা শুরু হয়।

 

 

রাজশাহী কলেজের এ ধারাবাহিক সাফল্যের পেছনে সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক মোহা. হবিবুর রহমানের দূরদর্শী নেতৃত্বের বড় ভূমিকা রয়েছে। শিক্ষক-শিক্ষার্থীর সম্পর্ককে সুদৃঢ় করেছেন। শিক্ষার্থীদের স্বপ্ন দেখতে শিখিয়েছেন। পুরো ক্যাম্পাসকে শিক্ষার্থীবান্ধব করে সাজিয়েছেন। ক্যাম্পাসকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রেখে শিক্ষার সুন্দর পরিবেশ সৃষ্টি করেছেন। এ বিষয়ে কলেজের বাংলা বিভাগের প্রভাষক মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘রাজশাহী কলেজের শিক্ষকরা সবসময় শিক্ষার্থীদের আন্তরিকভাবে পাঠদানের চেষ্টা করেন। এতে শিক্ষার্থীরা তাদের সমস্যাগুলো সহজেই শিক্ষকদের সঙ্গে শেয়ার করতে পারে। এছাড়া কলেজ প্রশাসনও অ্যাকাডেমিক ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ সুযোগ-সুবিধা দিয়ে থাকে। পড়াশুনার পাশাপাশি সাংস্কৃতিক, বুদ্ধিবৃত্তিক ও শরীরচর্চার জন্য শিক্ষার্থীদের অংশ নেয়া নিশ্চিত করতে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করে কলেজ। অর্থাৎ একজন শিক্ষার্থীকে সৎ, যোগ্য, দক্ষ ও দেশপ্রেমিক নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে সর্বোচ্চটা দিয়ে চেষ্টা করা হয় এখানে। হয়তো এ কারণেই জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ হওয়ার এ গৌরব অর্জন করতে পেরেছি আমরা।’

 

 

 

এছাড়া কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক মোহা. হবিবুর রহমান বলেন, ‘যে কোনও কাজের প্রতি ভালোবাসা, একাগ্রতা, সততা ও স্বচ্ছতা থাকতে হয়। আমি এসব বজার রেখে আমার প্রতিটি কাজ করার চেষ্টা করেছি এবং এর ফলস্বরূপ শিক্ষার্থীদের ইতিবাচকভাবে বদলে যেতে দেখেছি। নিজেদের প্রতিভা বিকাশের জন্য তাদের সুযোগ করে দিয়েছি, যা অনেক প্রতিষ্ঠানই পারেনি।’

 

 

 

রাজশাহী কলেজের বর্তমান অধ্যক্ষ অধ্যাপক মোহা. আব্দুল খালেক বলেন, ‘রাজশাহী কলেজ সব সময় শিক্ষার্থীদের ইতিবাচক পরিবর্তনের কথা ভেবে সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করে। আজকের এ সাফল্যের পেছনে সাবেক অধ্যক্ষের বড় ভূমিকা রয়েছে। সে ধারাবাহিকতা রক্ষা করে সাফল্যের মাত্রাকে আরও উচ্চস্তরে নিয়ে যাওয়ার প্রত্যয়ে কাজ চলছে। শিক্ষার্থীদের মেধার উৎকর্ষ সাধনে দক্ষ শিক্ষকদের মাধ্যমে মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুমসহ আধুনিক সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিতে কাজ করা হচ্ছে। রাজশাহী কলেজের এ সাফল্যে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের ইতিবাচক প্রচেষ্টা রয়েছে।’

 

 

 

 

এর আগে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আওতায় ১৮৭৩ সালে প্রতিষ্ঠিত রাজশাহী কলেজ দেশের তৃতীয় প্রাচীন উচ্চ শিক্ষা কেন্দ্র। ২০১৫ সালে প্রথমবারের মতো স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শ্রেণির ৬৮৫টি কলেজের মধ্যে রাজশাহী কলেজ দেশসেরা কলেজ হিসেবে নির্বাচিত হয়। মোট ২৮টি সূচকে ২০১৫ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত টানা চারবার সেরা হয়েছে রাজশাহী কলেজ; পেয়েছে মডেল কলেজের খেতাব।

 

 

 

প্রসঙ্গত, ১৮৭৩ সালে ৩৫ একর এলাকা নিয়ে প্রতিষ্ঠিত হয় রাজশাহী কলেজ। বর্তমানে এতে ২৪টি বিভাগে প্রায় ৩২ হাজার শিক্ষার্থী রয়েছে। এছাড়া শিক্ষক রয়েছেন ২৫৭ জন।

https:\/\/preview-xupnewsc.uttorbongoprotidin.com//preview-xupnewsc.uttorbongoprotidin.com//www.youtube.com/watch?v=vbBSSzbRYPk


news Source: Ref:  BSS।  UP।   PNS।  BNA।  UNB ।  dbcnews ।  Google News।  Yahoo news ।  Bing news  ।

উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের সংবাদটি শেয়ার করুন

Discover more from UttorbongoProtidin.Com 24/7 Bengali and English National Newsportal from Bangladesh.

Subscribe to get the latest posts to your email.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *