চাঁদপুরে মির্জা ফখরুলসহ ৭ জন নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা

উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের সংবাদটি শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার, উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন :: চাঁদপুরে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ জেলা বিএনপির ৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। চাঁদপুর সদর উপজেলার নানুপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা বিএনপির সম্মেলনের ফলাফল বাতিল ও পুনর্নির্বাচন ঘোষণার আদেশ চেয়ে এ মামলা করা হয়।

 

বুধবার জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. রাফিউস সাহাদাত ওয়াসীম পাটওয়ারী বাদী হয়ে চাঁদপুর সদর সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে এ মামলা করেন।

 

চাঁদপুর জেলা বিএনপির সভাপতি শেখ ফরিদ আহমেদ মানিকসহ ৭ জনের বিরুদ্বে মামলাটি করেন তিনি।

 

মামলা সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের ২ এপ্রিল চাঁদপুর সদর উপজেলার নানুপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা বিএনপির সম্মেলনের ফলাফল বাতিল ও পুনর্নির্বাচন ঘোষণার আদেশ চেয়ে চাঁদপুর জেলা বিএনপির সভাপতি শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক, অ্যাডভোকেট মো. সলিমুল্লাহ সেলিম, সম্মেলনের নির্বাচন কমিশনার অ্যাডভোকেট মো. শামছুল ইসলাম মন্টুসহ ৭ জনের নামে এ মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 

মঙ্গলবার মামলাটি হলেও বুধবার (২৪ আগস্ট) বিষয়টি জানানো হয়েছে। চাঁদপুর সদর সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. রাফিউস সাহাদাত ওয়াসীম পাটওয়ারী।

 

মামলায় আসামিরা হলেন, চাঁদপুর জেলা বিএনপির সভাপতি শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. সলিমুল্লাহ সেলিম, সম্মেলনের নির্বাচন কমিশনার অ্যাডভোকেট মো. শামছুল ইসলাম মন্টু, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভূঁইয়া, বিএনপির কুমিল্লা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মোস্তাক মিয়া ও বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সাইদুল হক সাইদ।

 

মামলার বিবরণ থেকে জানা গেছে, মামলার বাদী ৩নং বিবাদী সম্মেলনের নির্বাচন কমিশনার অ্যাড. মো. শামছুল ইসলাম মন্টু কর্তৃক প্রচারিত ফলাফল এবং বিজয়ী ১ ও ২নং বিবাদী সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক রূপে গৃহীত সকল কার্যক্রমের ওপর স্থগিতাদেশ চান।

 

মামলার বিবরণে আরও বলা হয়, চাঁদপুর জেলা বিএনপির ১৫১ সদস্য বিশিষ্ট নির্বাচিত পুরাতন কমিটি ভেঙে যে ৭১ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে তাতে গঠনতন্ত্র উপক্ষো করা হয়েছে। একই সঙ্গে অবৈধ সুবিধা নেওয়ার বিনিময়ে এ কমিটি করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

 

বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সেলিম মিয়া জানান, মামলার বাদীর মৌখিক বক্তব্যের আলোকে অভিযোগগুলো লিপিবদ্ধ হয়। এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে চলতি বছরের ২ এপ্রিল জেলা বিএনপির সম্মলনে ১ হাজার ৫শ ১৫জন কাউন্সিলর ছিলেন। এর মধ্যে ৯৮২ জন ভোট প্রয়োগ করলেও ৮০৪জন ভোট দেওয়ার সুযোগ পাননি। যে কারণে বাদী পুরো সম্মেলন বাতিল চান। মামলাটি আদেশের জন্য আগামী ২১ সেপ্টেম্বর ধার্য করেছেন আদালত।


উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের সংবাদটি শেয়ার করুন

Discover more from UttorbongoProtidin.Com 24/7 Bengali and English National Newsportal from Bangladesh.

Subscribe to get the latest posts to your email.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *