রাসিক মেয়রের গাড়িতে বোমা হামলার আসামীকে বাঁচাতে মরিয়া কে এই বালু আনোয়ার ?

উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের সংবাদটি শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার,উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন :: আ.লীগের নাম ব্যবহার করে ৭৩ ভুঁইফোড় সংগঠনের যেমন জন্ম হয়েছে তদ্রুপ এই ৭৩ সংগঠনের জন্মদাতারা কিন্তু হাইব্রিড আওয়ামী লীগার।ঠিক একইভাবে সারাদেশের ন্যায় রাজশাহী মহানগরীতেও হাইব্রিড নেতার জন্ম হয়েছে বৈকি। কেউ কেউ তো গনমাধ্যমের তোকমা ব্যবহার করে নিজেকে বাঁচাতে মরিয়া।

আর এই প্রতিযোগিতায় নাম লিখিয়েছেন রাজশাহী মহানগরীর এক সময়ের ক্যাডার আনোয়ার হোসেন ওরফে বালু আনোয়ারও।রাজশাহীতে মতিহার বার্তা ডটকম নামক একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল খুলে প্রকাশক হয়েছেন তিনি।

 রাজশাহী মহানগর সেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি আনোয়ার হোসেন
রাজশাহী মহানগর সেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি আনোয়ার হোসেন

অবশ্য ঐ নিউজ পোর্টাল প্রকৃতপক্ষে পরিচালনা করেন রাজশাহী অক্ট্রয় মোড়ের ডজন খানেক মামলার আসামী, সন্ত্রাসী এবং রাসিক মেয়রের গাড়িতে বোমা হামলার অন্যতম প্রধান আসামী মাসুদ রানা রাব্বানী।

সম্প্রতি এই রাব্বানী রাজশাহী মডেল প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও জাতীয় দৈনিক পত্রিকা বাংলাদেশ কন্ঠের ব্যুরো প্রধান ইমদাদুল হকের উপর দেশীয় অস্ত্রসহ সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে তাকে মৃত্যুর মূখে ঠেলে দেয়।এরপরই গত তারিখে রাজশাহী বোয়ালিয়া মডেল থানা পুলিশ।

এদিকে সন্ত্রাসী মাসুদ রানা রাব্বানীর গ্রেফতারের পর পরেই এই বালু আনোয়ার রাসিক মেয়রের গাড়িতে বোমা হামলার অন্যতম প্রধান আসামী রাব্বানীকে বাঁচাতে মানববন্ধন করেছেন।যা রীতিমতো রাজশাহী মহানগর ও জেলা আওয়ামীলীগসহ সকল অঙ্গসংগঠনের সদস্যদের মধ্যে এক মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করেছে। অনেকটা যেন কৃষ্ণের ঘরে রাবনের বসবাসের মত বিষয়।

কে এই আনোয়ার ?

রাজশাহীর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা বালু আনোয়ারের বিরুদ্ধে রাজশাহী জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর বরাবর স্মারকলিপি দিয়ে এ দাবি জানিয়েছিল জননেতা আতউর রহমান স্মৃতি পরিষদ।

আতউর রহমান স্মৃতি পরিষদের নেতৃবৃন্দ বলেছিলেন, ২০২১ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি থেকে রাজশাহী মহানগরীর মধ্যে তালাইমারি কাজলা মৌজার বিস্তির্ণ চরাঞ্চল থেকে বালু আনোয়ারসহ কতিপয় দূস্কৃতিকারী প্রতিরাতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন, মজুদ ও পরিবহন করছেন। যার শহরবাসীর জন্য আতঙ্কের একটি বিষয়।

আরো উল্লেখ্য যে, মহামান্য হাইকোর্টের রিট পিটিশন নং ৬৫২১/২০১৯ মোতাবেক সকল প্রকার বালু উত্তোলন সম্পুর্নভাবে নিষিদ্ধ তবুও বালু উত্তোলনে মরিয়া বালু আনোয়ার।

এদিকে ৭১ টেলিভিশনের এক আলোচনায় উঠে এসেছে বালু আনোয়ার কিভাবে রক্ষক হয়ে ভক্ষকের ভূমিকা পালন করছেন।

উক্ত বিষয়ে মহানগর সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ও ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল মমিনের সাথে কথা বললে তিনি জানান, এমন তো হওয়ার কথা নয়। রাজশাহী আওয়ামী লীগের প্রান আমাদের সকলের মধ্যমনির গাড়ি বহরে বোমা হামলাকারিকে বাঁচাতে আমাদের সংগঠনের লোক কাজ করবে এটা হতে পারেনা। আমরা যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করব অবশ্যই।

সার্বিক বিষয়টি নিয়ে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন এর মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান- রাব্বানীকে বাঁচাতে কে কাজ করছে জানতে চান এবং বলেন, আমার জানা ছিলনা। আমি খোঁজ খবর নিয়ে অবশ্যই ব্যবস্থা নিব।

তবে রাজশাহী আওয়ামীলীগের প্রবীন রাজনীতিবিদরা মনে করছেন – এখুনই যদি রাজশাহী মহানগরীতে হাইব্রিড আওয়ামীলীগ নেতাদের কর্মকান্ড প্রতিহত না করা যায় তবে অচিরেই রাজশাহী মহানগর আওয়ামীলীগ।


উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের সংবাদটি শেয়ার করুন

Discover more from UttorbongoProtidin.Com 24/7 Bengali and English National Newsportal from Bangladesh.

Subscribe to get the latest posts to your email.