A._H._M._Khairuzzaman_Liton
জাতীয় শহীদ নেতা ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ.এইচ.এম কামরূজ্জামানের পুত্র ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেস্টা ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন।

নৌবন্দর চালুসহ নির্বাচনী ইস্তেহার বাস্তবায়নের উদ্যোগ রাসিক মেয়র লিটনের

Rajshahi_Pet_Care
উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের সংবাদটি শেয়ার করুন

ষ্টাফ রিপোর্টার উত্তরবঙ্গ প্রতিদিন :: উন্নয়ন দৃশ্যমান, এবার হবে কর্মসংস্থান’ এ স্লোগানকে সামনে রেখে চলতি বছরের ২১ জুন অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে মূল ৬ দফাসহ ১০ খাতে ৯৯ উন্নয়ন প্রতিশ্রুতি দিয়ে  নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছিলেন জাতীয় শহীদ নেতা ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ.এইচ.এম কামরূজ্জামানের পুত্র ও বাংলাদেশ আওয়ামী  লীগের  কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেস্টা ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন। 

 

 

 

সেই অনুযায়ী শপথ নেয়ার পর পরই এজেন্ডা বাস্তবায়নে নেমেছেন রাসিক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন। তবে একথা অনস্বীকার্য যে,  এশিয়া মহাদেশের মধ্যে ক্লিন নগরীর তোকমা মেয়র খায়রুজ্জামান লিটনের নিরলস প্রচেষ্টার ফলেই অর্জিত হয়েছে।

 

সেই ধারাবাহিকতায় আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা থেকে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত নগর ভবনের সিটি হলরুমে আয়োজিত সভায় রাসিক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন – গত ৫ বছরে রাজশাহীকে সাফল্যের একটা পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়েছে। রাজশাহীর সুনাম দেশের সীমানা পেরিয়ে বিদেশে বসবাসরত বাংলাদেশীদের মাঝেও ছড়িয়ে পড়েছে। এই অর্জন ধরে রেখে রাজশাহীকে আরো সামনের দিকে এগিয়ে নিতে যেতে চাই। রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের সচিবালয় ও হিসাব বিভাগের কার্যক্রম বিষয়ে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসকল কথা বলেন। 

 

মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, রাজশাহী দৃষ্টিনন্দন সড়কবাতিতে আলোকায়নেও সুনাম অর্জন করেছে। আলোকায়নের কাজ এখনো চলছে। তালাইমারি থেকে আলুপট্টি পর্যন্ত, শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান থেকে নওদাপাড়া পর্যন্ত সড়কটিও আলোকায়নের কাজ চলছে। এই কাজ শেষ হলে রাজশাহী আরো সুন্দর হবে।রাজশাহীকে স্মার্ট সিটি করতে আইসিটি বিভাগের সহযোগিতায় মাস্টারপ্ল্যান তৈরি করা হয়েছে। রাজশাহীতে নৌবন্দর প্রতিষ্ঠা ও ভারতের মুর্শিদাবাদের ধূলিয়ান ও মায়া বন্দর থেকে রাজশাহী পর্যন্ত নৌরুট চালু করার প্রচেষ্টা চলছে। এটি চালু হলে রাজশাহীর অর্থনৈতিক গতিশীলতা বৃদ্ধি পাবে। আগামীতে রাজশাহী সিটির আয়তন কয়েকগুন বৃদ্ধি করা হবে। সব মিলিয়ে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের এমন এক জায়গায় নিয়ে যেতে চাই সেখান থেকে কেউ নিচে নামাতে পারবে না। সেই লক্ষ্যে আমরা নিবিড়ভাবে কাজ করে যাচ্ছি।

 

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত নগর ভবনের সিটি হলরুমে আয়োজিত সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। রাসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এবিএম শরীর উদ্দিনের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন  রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের ১২ নং সরিফুল ইসলাম বাবু, ২১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নিযাম-উল-আযিম। সভা মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল মমিন, ১৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার হোসেন আনার, ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সোবহান লিটন, ১৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম ১৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমন, ০৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রাসেল জামান।

 

 

সভায় রাসিকের বাজেট কাম হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম খান, ভারপ্রাপ্ত সচিব আল মাহমুদ রনি সহ সচিবালয় ও হিসাব বিভাগের বিভিন্ন শাখার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

A._H._M._Khairuzzaman_Liton

উত্তরবঙ্গ প্রতিদিনের সংবাদটি শেয়ার করুন

Discover more from UttorbongoProtidin.Com 24/7 Bengali and English National Newsportal from Bangladesh.

Subscribe to get the latest posts to your email.

Show 1 Comment

1 Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *